ইউক্রেনে পশ্চিমা আধুনিক মিসাইল সিস্টেম মোকাবেলায় প্রস্তুত মস্কো

ইউক্রেনে পশ্চিমা আধুনিক মিসাইল সিস্টেম মোকাবেলায় প্রস্তুত মস্কো। জার্মান গোয়েন্দা প্রধান বলেছেন তুরস্কের বিরুদ্ধে হামলার জন্য কুর্দি সন্ত্রাসীরা জার্মানিকে ব্যবহার করছে। ভারতে আসিয়ান সম্মেলন, মিয়ানমারকে আমন্ত্রণ জানানো নিয়ে উভয় সঙ্কটে নয়াদিল্লি।

নতুন ড্রোন সোয়ান লঞ্চিন সিস্টেম উদ্ভাবন চীনের। ইউক্রেনে পশ্চিমাদের পাঠানো আধুনিক অস্ত্র মোকাবেলার প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া। এক্ষেত্রে রাশিয়া ব্যবহার করতে পারে ক্ষুদ্র পারমানবিক বোমা। পারমাণবিক এ খুদ্র বোমা রাশিয়া নিক্ষেপ করতে পারে 2a7m Malka house jar থেকে। এটি পারমানবিক শেল নিক্ষেপে সক্ষম হাউজ জার।

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী এবং ভারি হাউজ জার হিসেবে বিবেচনা করা হয় রাশিয়ার এ আর্টিলারি সিস্টেমকে। যুক্তরাষ্ট্র এবং বিটেনের শীর্ষ পর্যায় থেকে ঘোষণা দেয়া হয়েছে রাশিয়ার মোকাবেলায় ইউক্রেনে এডভান্স রকেট সিস্টেম পাঠাবে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, তারা দূরপাল্লার মিসাইল না পাঠালেও হাই মবিলিটি আর্টিলারি রকেট সিস্টেম পাঠাবেন।

নিউইয়র্ক টাইমস’ পত্রিকায় প্রেসিডেন্ট তার এক লেখায় বলেছেন, এই রকেট সিস্টেমের মাধ্যমে ইউক্রেন আরমি তার লক্ষ বস্তুতে নিখুত ভাবে আঘাত করতে সক্ষম হবে। এর পাল্লা হবে ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ব্লাদিমির পুতিন পশ্চিমাদের ইউক্রেনে দূরপাল্লার অস্ত্র পাঠানোর বিষয় সতর্ক করেন।

পুতিন বলেন, পশ্চিমারা যদি দূরপাল্লার মিসাইল পাঠায় তাহলে আমরা তা মোকাবিলার উদ্যোগ নেবো। এক্ষেত্রে এমন অস্ত্র ব্যবহার করে তাদেরকে আঘাত করা হবে যা আগে কখনো ব্যবহার করা হয়নি। পুতিনের এই হুশিয়ারী নিয়ে পশ্চিমা গণমাধ্যম বলছে রাশিয়া এ ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারে 2s7 housejar বিশ্বের সবচেয়ে ভারি ও বড় housejar 3bb2 ক্লেসিভিনা প্লটোনিয়াম ভিত্তিক নিউক্লিয়ার শেল নিক্ষেপ করতে পারে। প্রতিটি শেল .5 থেকে এক কিলো টন শক্তি উৎপাদন করতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্র ব্রিটেন নরয়েসহ বিভিন্ন দেশ হাই প্রিসিয়েন মিসাইল পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে। ইতোমধ্যেই ওডেসআেই পৌঁছেছে হার্পেোন এন্টিশিপ মিসাইল। এর আওতায় ১৪০কিলোমিটার। পশ্চিমে মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে হার্পেোন মিসাইলের কারণে রাশিয়ার কৃষ্ণ সাগর থেকে তাদের নৌবহর দূরে সরিয়ে নিয়েছে।

পশ্চিমা গণমাধ্যম এর খবরে বলা হয়েছে, পশ্চিমা এডভান্স রকেট সিস্টেমসহ শক্তিশালী আধুনিক অস্ত্র মোকাবেলার প্রস্তুতি নিয়ে অগ্রসর হচ্ছে রাশিয়ান আরমি। অবশ্যই ইউক্রেনে পশ্চিম অস্ত্রের সয়লাব নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শৃরু করেছে। পশ্চিম অনেক বিশেষজ্ঞ বলছেন এসব অস্ত্র ইউক্রেনের ক্ষতির পরিমাণ বৃদ্ধি করবে।

ইউক্রেনকে শেষ পর্যন্ত পশ্চিমারা রক্ষা করতে পারবে না। অপরদিকে অবরোধ দিয়ে রাশিয়া কেউ কাবু করা যাচ্ছে না। রাশিয়ার তুলনায় ইউরোপীয় দেশগুলোকে বেশি দুর্ভোগের মুখে পড়তে হচ্ছে, ফলে ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে পশ্চিমা বিশ্বে অস্থিরতা ও ক্ষোভ বাড়ছে।

ইউক্রেন দখলের দ্বারপ্রান্তে রুশ বাহিনী

বিশ্বের সর্বোচ্চ পতিতাবৃত্তির দেশ

আমাদের চ্যানেল ভিজিট করুন

Leave a Comment