গলার রোগের চিকিৎসায় মিসওয়াকের গুরুত্ব

মিসওয়াক করা নবীজি (স.) এর সুন্নাত। মিসওয়াক করলে দাঁত পরিষ্কার হয়, মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়, এমনকি গলার মধ্যে জমে থাকা কফ বা লালা দূর হয়, যার ফলে গলায় যদি কোনো ক্ষত সৃষ্টি বা গলা ফুলে থাকে অথবা খুশখুশি কাশ হয়ে থাকে, তাহলে মিসওয়াকের ফলে সুস্থতা লাভ করা সম্ভব।

এ বিষয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। কোন এক রোগীকে মেসওয়াক ব্যবহার করানোর ফলে যথেষ্ট ফল পাওয়া গেছে। এক ব্যক্তি গলায় মাংসগ্রন্থি বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে সে পেরেশান ছিল। তাকে তুত ফলের শরবত ও মেসওয়াক ব্যবহার করতে দেওয়া হল।

অর্থাৎ তুত ফলের শরবত পান করবে আর তাজা মিসওয়াক দ্বারা দাঁত মাজবে, এবং রাত্রে ঘুমানোর পূর্বে গরম মসলা, সাদা ফল, এলাচি লবংগ দ্বারা পানি গরম করে হালকা লবন দিয়ে যদি গরগর করে কুলি করা যায়, তাহলে গলা ফুলা ও গলা ব্যথা দূর হয়। এ পন্থা অবলম্বন করার পর ফলে অসুস্থ ব্যক্তি দ্রুত আরোগ্য লাভ করল। বিশেষ করে মেসওয়াক করলে গলার লালা দূর হয় এর ফলে গলার বিভিন্ন ধরনের রোগ থেকে আরোগ্য লাভ করা সম্ভব।

তবে তরুতাজা মেসওয়াক ব্যবহার করা ভালো। বিশেষ করে নিমের মেসওয়াক ব্যবহার করলে গলায় জমে থাকা ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া জীবাণু দূর হয়ে যায়। নবীজি (স.) এর প্রতিটি সুন্নাতে রয়েছে মানবতার কল্যাণ এবং মুক্তি। আসুন আমরা মিসওয়াক করে দাঁত পরিষ্কার করি এবং নিজেদেরকে সুস্থ রাখি। আল্লাহ তা’আলা আমাদেরকে সকল প্রকার রোগ থেকে মুক্তি দান করুন।

দীর্ঘ সময় সহবাস করার উপায় বা সহবাসের স্থায়িত্বকাল বাড়ানোর পদ্ধতি

বীর্য ঘন করার ঔষধ তৈরির পদ্ধতি

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

শেয়ার করুন