বাদশা নমরুদের কন্যা জীবনী

বাদশা নমরুদের কন্যা জীবনী

যে নমরুদ হযরত ইব্রাহিম (আঃ)-কে অগ্নিতে নিক্ষেপ করেছিল, তার এক কন্যার নাম রেয়’যা। হযরত ইব্রাহিম (আঃ)-কে অগ্নি-কুন্ডে নিক্ষেপ করা হলো। শত শত লোক এটা দেখবার জন্য ভিড় করল। নমরুদের কন্যাও একটি উঁচু স্থানে চড়ে্ এই দৃশ্য দেখতেছিল। সে দেখল, এই ভীষণ প্রজ্জলিত আগুন হযরত ইব্রাহিম (আঃ)-এর লোম ও স্পর্ষ করছে না।

তৎক্ষণাৎ সে উচ্চঃস্‌বরে জিজ্ঞাসা করলেন। ওহে ইব্রাহিম! তোমাকে আগুন কেন জালাচে্‌ছ না? উত্তরে খালিলুল্‌লাহ বললেন, ঈমানের বরকতেই আল্লাহ্ তাআলা আমাকে আগুন থেকে রক্ষা করছেন। তখন রেয়’যা বলে উঠলেন, আপনার অনুমতি পেলে এখনি আমি আগুনে প্রবেশ করব। হযরত ইব্‌রাহিম (আঃ) বললেন, তুমি ‘লা-ইলাহা ইল্‌লাল্লাহ্ ইব্রাহিম খালিলুল্‌লাহ’ বলে এখানে চলে আস। তৎক্ষণাৎ সে কালিমা পড়ে আগুনে প্রবেশ করল। আগুন তাকে স্পর্শ করল না।

রেয়া’যা আগুন থেকে বের হয়ে তার বাবা নমরুদকে ভাল-মন্‌দ অনেক কিছুই বললেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে নমরুদ তার উপর অকথ্য অত্যাচার নির্যাতন করল। কিন্তু সকল উৎপীড়ন নির্যাতন তার অটল ঈমানের কাছে হেরে গেল। নমরুদের সকল চেষ্টাই ব্যর্থ হল।

অধিকন্তু তার আদরের মেয়েকেও সে হারাল। সুবহানাল্লাহ! কত নির্ভীক সাহসী মেয়েটি। অকথ্য নির্যাতন, অসহনীয় উৎপীড়ন সকলি পরাভূত হল তার ঈমানের সামনে। প্রত্যেক মুসলমানের উচিত এহেন বিশ্বাসী ধর্ম পরায়ণ হওয়া যার নিকট শত শত বাধা বিপত্তি পদদলিত নিষ্পেষিত হয় অনায়াসে।

বীর্য ঘন করার ঔষধ তৈরির পদ্ধতি

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

Spread the love

Leave a Comment