বিদআতী হাউযে কাউসারের পানি পান করতে পারবে না

হাশরের ময়দানে মানুষ যখন এক ভয়াবহ পরিস্থির স্বীকার হয়ে চরম বিপদ গ্রস্থ হয়ে প্রত্যেকেই ইয়া নাফসী ইয়ানাফসী বলতে থাকবে। মানুষ পানির পিপাসায় কাতর হয়ে ছটফট এবং ছুটাছুটি করতে থাকবে। সেদিন ঐ তৃষ্ণা নিবারণের জন্য একমাত্র হাউজে কাউসারের পানি ছাড়া কোন পানি থাকবে না। যে ব্যক্তি একবার এ পানি পান করবে তার আর কোন পিপাসা লাগবে না। স্বয়ং রাসূলে করিম (সা:) নিজ হাতে উক্ত পানি নিজ উম্মতকে পান করাবেন। দলে দলে উম্মত রাসূলে আকরাম (সা:) এর নিকট পানি পান করার জন্য আসবে, কিন্তু আফসোসের বিষয় হবে বিদআতীরা ঐ সময় পানি পান করার জন্য আসবে, তবে পানি পান করা তাদের ভাগ্যে জুটবে না। যেমন হাদিসে আসছে-

হযরত আয়েশা (রা:) বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ্ (সা:) কে বলতে শুনেছি তিনি বলেছেন, আমি কিয়ামতের দিন হাউজে কাউসারের পাড়ে থাকবো। যাদের আমার নিকট আসার অনুমতি থাকবে, আমি তাদের অপেক্ষায় থাকবো। তারা আসবে এবং আমি তাদের পানি পান করাব। আল্লাহ্র কসম সেদিন এক দল লোককে আমার নিকট আসার পথ আটকে দেওয়া হবে। আমি আমার উম্মত হিসাবে তাদেরকে চিনব তারাও আমাকে চিনবে। আমি তখন আল্লাহ পাককে বলব হে আল্লাহ্ এরা তো আমরাই উম্মত তারা বাঁধা গ্রস্ত হলো কেন? তখন আল্লাহ্ পাক বলবেন, হে নবী আপনি জানেন না, আপনি দুনিয়া হতে বিদায়ের পর আপনার রেখে আসা দ্বীন ইসলামের মধ্যে কি সব বিদআত আবিস্কার করে পবিত্র দ্বীনকে পরিবর্তন করেছিল। তখন আমি বলব দুর হয়ে যাও, দুর হয়ে যাও যারা আমি দুনিয়া থেকে বিদায়ের পর দ্বীনে শরীয়তকে নিজের মন গড়া আমল দ্বারা পরবর্তন পরিবর্ধন করেছিলে। অতএব আজ এদের হাউজে কাউসার থেকে পানি পান করার অনুমতি নেই। সহি মুসলিম, হাদিস নং- ২২৯৪।

প্রিয় মুসলিম সমাজ ভেবে দেখা দরকার বিদআত কত বড় জঘন্য অপরাধ। বিদআত মানেই গোমরাহী ও অন্ধকার। যার পরিণাম জাহান্নাম। কিন্তু অনেকে এটাকে তুচ্ছ মনে করে। মনে রাখতে হবে এটাতে শয়তানের একট মস্তবড় ধোকা। সাহাবায়েকেরাম (রা:), তাবিঈন, তাবে তাবিঈন, আয়িম্মায়ে মুজতাহিদীন তথা উলামায়ে হক্কানী-রাব্বানী কোন যুগেই বিদআতকে আশ্রয় প্রশ্রয় দেননি। এমন কি তারা বিদআতের বিরুদ্ধে সব সময় সোচ্চার ছিলেন এবং বতমানেও আছে। তাই আমাদের সকলেরই কর্তব্য বিদআত থেকে বেঁচে সুন্নাতের অনুসারী হওয়া এবং বিদআতের ভয়াবহতা সম্পর্কে মানুষকে সতর্ক করা। আল্লাহ্ পাক আমাদের সকলকে বিদআত থেকে বেঁচে সুন্নাতের অনুসরণে জীবন যাপন করার তৌফিক দান করুন। আমিন

বিদআত ও কুসংস্কার বিস্তারিত পড়ুন

Translator