শিরিকি আকীদা পোষণ কারীর ইমামতি কি জায়েয?

যে ব্যক্তির গোনাহ্ কুফর পর্যন্ত পৌঁছেনি, এমন প্রত্যেক মুসলমানের পিছনে নামাজ হয়ে যায়।

কিন্তু সওয়াব অনেক কম হয়ে যায়। আর যার গুনাহ কুফর পর্যন্ত পৌঁছে গেছে তার পেছনে নামাজ হয় না। (ফতোয়ায়ে রশিদিয়া ৩৫১ পৃষ্ঠা)

রাসুলুল্লাহ (স.) কে হাজির নাজির আকিদা পোষণকারীর ইমামতী জায়েয?

যে ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ (স.) কে হাজির নাজির মনে করে এবং সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী বিশ্বাসপোষণ করে, এমন ব্যক্তি কে ইমাম বানানো জায়েজ নেই।

আর যদি এমন কোন ব্যক্তি ইমাম হয়ে থাকে, তাহলে সমস্ত নামাজিদের উচিত যে এমন ব্যক্তিকে ইমামতি থেকে হটিয়ে সুন্নাতের অনুসারী, পবিত্রতা এবং নামাজের মাসআলা-মাসায়েল সম্পর্কে অবগত। এবং সহিহ্ আকিদা আকিদাপোষণকারী ব্যক্তিকে ইমাম হিসেবে নিয়োগ দিবে। অন্যথায় সবাই গুনাহগার হবে।

(ফতোয়ায়ে মাহমুদিয়া দ্বিতীয় খন্ড ৭৮-৭৯ পৃষ্ঠা)

যে চারটি কারণে গোসল ফরয হয়

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

শেয়ার করুন