নামাজের জন্য সর্বপ্রথম আমরা অজু করে থাকি। অজু চলাকালীন আমরা যখন নিজেদের চেহারা, কনুই পর্যন্ত হাত ও পা ধৌত করি এবং মাথা মাসেহ করি। তখন আমাদের দেশের চলমান রক্ত এক নবজীবন লাভ করে। যার মাধ্যমে আমাদের প্রশান্তি লাভ হয়।

ফলে আমাদের শিরা-উপশিরায় কর্মধারা প্রভাবান্বিত হয়। এদিকে শিরা ও স্নায়ুর স্থিরতায় মস্তিষ্ক আরাম পায়। আর প্রধান প্রধান অঙ্গসমূহ অর্থাৎ মাথা, ফুসফুস, অন্তর ইত্যাদির কর্মরত অবস্থায় চলতে থাকে। তাছাড়া রক্তের উচ্চচাপ কমে গিয়ে সাধারণ অবস্থায় ফিরে আসে।

চেহারার উজ্জলতা, সৌন্দর্য ও লাবণ্যতা, কমনীয়তা পরিলক্ষিত হয়। অজুর দ্বারা স্নায়ুর শিথিলতা, চোখে আকর্ষণীয় ও অলসতা দূর হয়। আপনি কখনও পরীক্ষামুলকভাবে হাই প্রেশার রোগীকে অজু করলে দেখতে পাবেন যে, রক্তচাপ অনেকটা হ্রাস পেয়েছে। আর অজু করতে হয় নামাজের কারণে যখন কোন ব্যক্তি অজু করে নামাজ পরবে, ইনশাআল্লাহ তার হাই ব্লাড প্রেসার কমে সাধারণ অবস্থায় আসবে।

শেয়ার করুন