হাউজে কাউসার কি? কেমন? জান্নাতী হুর দেখতে কেমন

হাউজে কাউসার কি? কেমন: হযরত আনাস (রাযি.) থেকে বর্ণিত আছে, রাসূল (স.) ইরশাদ করেছেন। মিরাজের রজনীতে জান্নাতে ঘুরছিলাম। এমন সময় আমার সামনে এমন একটি নহর পেশ করা হলো। যার উভয় তীরে মোতির গম্বুজ ছিলো। আমার সাথে যে ফেরেশতা ছিলো তাঁকে জিজ্ঞেস করলাম এটা কি? উত্তরে বললো, এটা কাউসার নামক নহর যা আল্লাহ্ তা’য়ালা আপনাকে প্রদান করেছেন।

হযরত আনাস (রাযি.) থেকে বর্ণিত আছে যে, সাহাবায়ে কেরামগণ রাসূল (স.) এর কাছে আরজ করলেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ (স.)! কাউসার ‍কি? রাসূল (স.) বললেন, এটা একটা নহর, যা আল্লাহ তা’য়ালা আমাকে দান করেছেন। এর পানি দুধ থেকে অধিক সাদা, এবং মধু থেকে অধিকতর মিষ্টি।

হযরত জিবরাইল (আ.) জান্নাতে প্রবেশ করলেন। নূরের তাজলি্ল উঠলো।  জিবরাঈল (আ.) ফেরেশতা, তিনিও সে নূরের চমক দেখে ‍সিজদায় লুটিয়ে পড়লেন।  তিনি ভাবলেন আল্লাহ্ দীদার হচ্ছে। তিনি সিজদায় পড়ে আছেন। মনে মনে খুশি। আল্লহর দিদার লাভ করছেন। এমন সময় আওয়াজ এলো

হে রুহুল আমীন! তুমি তোমার মাথা উঠাও। জিবরাঈল (আ.) সিজদা থেকে মাথা তুলে দেখেন, এক জান্নাতী হুর সামনে দাঁড়ানো। তাঁর  চেহারার নূরে চমকাচি্ছলো।

তাঁর চেহারার নূরের চমক দেখে জিবরাইল (আ) এর মতো উচ্চ মর্যাদা সম্পন্ন ফেরেশতা যিনি সিদরাতুল মুনতাহায় থাকতেন , তিনিও আশ্চার্য হয়ে হতবাগ হয়ে গেছেন।

হে ভাই ও বোনেরা ! এ হুর যে সব জান্নাতীদের সাথী  হবে, তার  কি অবস্তা হবে? জান্নতীরা এ হুরদের দেখে কতইনা আনন্দিত হবে। চল্লিশ বছর পর্যন্ত  তো তাকে শুধু দেখে কেটে যাবে। এক জনের চল্লিশ বছর। জিবরাঈল আ. পেরেশান হয়ে গেলেন , তিনি বললেন , হে জান্নাতী হুর তোমাকে আল্লাহ পাক কি কারনে তৈরী করছেন? হুর জবাবে বললো।

আমাকে আল্লাহপাক রাব্বুল আলামিন সে বান্দাদের জন্য সৃষ্টি করেছেন, যারা নিজেদের মন কামভাব আল্লাহর জন্য বিসর্জন দিয়েছে। যখন জান্নাতে প্রবেশের সময় হবে, জান্নাতের দরজা বন্ধ থাকবে।  রাসূলে আকরাম (স.) সে বন্ধ দরজা খুলে প্রবেশ পথ উদ্বোধন করবেন।  নবীজি (স.) এরশাদ করেন, আমার জন্য লাল রঙের উটনী আনা হবে, আমি এর উপর সাওয়ার হবো। 

ঘোষণা হবে হুযুর (স.) এর কোচওয়ান কে হবে? রাসূলের সাথে কে যাবে? তখন হযরত বেলাল (রাযি.) এর নাম ঘোষনণা হবে। বলা হবে বেলালকে ডাকো । লাগাম তার হাতে দেওয়া হবে।  হযরত বেলাল রাসূল (স.) এর উটনীর  লাগাম ধরে জান্নাতের দিকে যাবেন।

ভাইসব! হযরত বেলাল  (রাযি.) হাবশী গোলাম ছিলেন, সেদিন তাঁর মর্যাদা  কতো উর্ধ্বে থাকবে। এ ইজ্জত, এ শান তিনি পেয়েছেন, আল্লাহর রাসূলের আনুগত্য প্রদর্শন করে।

হাউজে কাউসার কি? কেমন

ইসলামী জীবন

ইউটিউব

Spread the love

Leave a Comment